অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই

দেশের নাট্যাঙ্গনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় রাজধানীর উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৪৪ বছর।

এদিন সকাল ১০টার দিকে হঠাৎ উত্তরাস্থ বাসায় অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সেখানে তখন মেকাপ আর্টিস্ট মিহির ছিলেন। তাজিনের নির্দেশনা মোতাবেক তাকে উত্তরার সিনসিন জাপান হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কিন্তু সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে রিজেন্ট হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে আইসিউইউতে ডা. নূরের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা চললেও শেষ পর্যন্ত তাকে আর বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

ডাক্তার জানান হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়েছে। তাজিন আহমেদ’র হঠাৎ প্রয়াণে শিল্পীরা যে যেখানে ছিলেন বিকেল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে হাসপাতালে ভীড় করেন।

শর্মিলী আহমেদ, শহীদুজ্জামান সেলিম, ওমরসানী, রিয়াজ, সাদিয়া ইসলাম মৌ, তানভীন সুইটি, বিজরী বরকতউল্যাহ, তারিন, ঈশিতা, জাকিয়া বারী মম, জেনি, আনিসুর রহমান মিলন, রওনক হাসান, ইন্তেখাব দিনার, হোমায়রা হিমু, দীপা, স্নিগ্ধা শ্রাবণ, শাহরিয়ার নাজিম জয়, ফারুক আহমেদ, তাহমিনা সুলতানা মৌ’সহ নির্মাতা সৈয়দ শাকিল, সকাল আহমেদ’সহ আরো অনেকেই তাজিন আহমেদকে শেষ এক নজর দেখতে হাসপাতালে দ্রুত উপস্থিত হন।

তাজিন আহমেদ’র ফুফু জনপ্রিয় অভিনেত্রী দিলারা জামান সন্ধ্যা নাগাদ হাসপাতালে পৌঁছান। তাজিন আহমেদ’র মা ঢাকার বাইরে আছেন। মায়ের সঙ্গে কথা বলে তাজিন আহমেদকে কোথায় দাফন করা হবে তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তাজিন আহমেদ’র জন্ম ১৯৭৩ সালে। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি সাংবাদিকতায়ও বেশ সক্রিয় ছিলেন। ১৯৯৬ সালে বিটিভিতে প্রচারিত ‘শেষ দেখা শেষ নয়’ নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে তাজিন আহমেদের অভিনয় যাত্রা শুরু হয়েছিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ থেকে পড়াশোনা করেছেন তাজিন আহমেদ।

ভোরের কাগজ, প্রথম আলোসহ বিভিন্ন পত্রিকায় সাংবাদিকতার পাশাপাশি আনন্দ ভুবন ম্যাগাজিনের কলামিস্টও ছিলেন তিনি। পরে মার্কেন্টাইল ব্যাংকে পাবলিক রিলেশন অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বিটিভির স্বর্ণালী সময়ে টিভি নাটকে অভিনয় করে দর্শকের কাছে প্রিয় হয়ে ওঠেন তাজিন আহমেদ। বিটিভির সময়টাতে একচ্ছত্র জনপ্রিয়তা ছিল তাজিন আহমেদের। অসংখ্য নাটকে আজিজুল হাকিম, জাহিদ হাসান ছিলেন তাজিনের সহ অভিনেতা।

রেডিও এবং টেলিভিশনে উপস্থাপনাও করতেন তাজিন। লেখালেখিও করেন তিনি। তাজিনের লেখা ও পরিচালনায় তৈরি হয় ‘যাতক’ ও ‘যোগফল’ নামে দুটি নাটক। তার লেখা উল্লেখযোগ্য নাটকগুলো হচ্ছে ‘বৃদ্ধাশ্রম’, ‘অনুর একদিন’, ‘এক আকাশের তারা’, ‘হুম’, ‘সম্পর্ক’ ইত্যাদি।
Source:bbarta24.com

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.