কুমিল্লাকে হারিয়ে দুইয়ে খুলনা

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ-বিপিএলের সেরা চারে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে তামিম ইকবালের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ১৪ রানে হারিয়ে সেরা দুইয়ে জায়গা করে নিয়েছে মাহমুদউল্লাহর খুলনা টাইটান্স।

মিরপুরের শেরে-বাংলা স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার নিজেদের অবস্থান দ্বিতীয় স্থানে উঠিয়ে নেয়ার জন্য মাঠে নামে খুলনা টাইটান্স।

শুরুতে প্রতিপক্ষ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সামনে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭৪ রান করে খুলনা।

গুরুত্বপূর্ণ এ ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ ছিল খুলনার। নাজমুল হাসান শান্ত ও মাইকেল ক্লিঙ্গার মিলে ৬ ওভারে করেন ৫৫ রানের জুটি। ২১ বলে ৩৭ রান করে এ সময় আউট হন শান্ত। ২৯ রান করে আউট হয়ে যান মাইকেল ক্লিঙ্গার। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২৩ বল খেলে ২৩ রান করে আউট হন।

শেষ মুহূর্তে ঝড় তোলেন আরিফুল হক। ২১ বলে ৩৫ রান করেন তিনি। ৪টি বাউন্ডারির সঙ্গে ছিল একটি ছক্কার মার। বেনি হাওয়েল ৩ বলে করেন ৯ রান। কুমিল্লার হয়ে আল আমিন হোসেন নেন ৩ উইকেট। একটি করে উইকেট নেন শোয়েব মালিক ও সলোমন মিরে।

১৭৭ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঘূর্ণির মুখে পড়েন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সলোমন মিরে।

এরপর ইমরুল কায়েস আর তামিম ইকবাল জুটি গড়ে ৪৬ বলে ৬৩ রান যোগ করেন। এতে শুরুর ধাক্কা সামলে ওঠে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

কিন্তু ১৯ বলে ২০ রান করে ইমরুল ফিরতেই বদলে যায় ম্যাচের চেহারা। কিছুক্ষণ পর তামিম ৩৩ বলে ৩৬ করে ব্রেথওয়েটের শিকার হন। এতে ফের বিপদে পড়ে যায় কুমিল্লা।

শোয়েব মালিক ও জস বাটলার ইনিংস ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন। ১৬ বলে ১১ রান করে ফিরে যান বাটলার।

শোয়েব মালিক হাত খুলে খেলে ২৩ বলে ৩৬ রান করেন। একটি চারের পাশে ৩টি ছক্কা হাঁকান পাকিস্তানি অলরাউন্ডার। ইরফানের বলে মাহমুদউল্লাহর তালুবন্দি হয়ে ফেরেন তিনি।

এরপর মারলন স্যামুয়েলস ও রকিবুল চেষ্টা করলেও আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি কুমিল্লা। রকিবুল ৯ বলে ১৭ ও স্যামুয়েলস করেন ২৫ রান।

খুলনার বোলারদের মধ্যে আবু জায়েদ রাহি ও বিনি হাওয়েল দুটি করে উইকেট নেন। মাহমুদউল্লাহ, কার্লোস ব্রেথওয়েট ও মোহাম্মদ ইরফান একটি করে উইকেট পেয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.