ছড়ায় ছড়ায় ভাষার লড়াই

” ছড়ায় ছড়ায় ভাষার লড়াই”
আ. ফ. ম. মোদাচ্ছের আলী
প্রকাশক: আদিগন্ত প্রকাশন। ( বাংলা একাডেমি বইমেলা স্টল : ৫৪১)

মহান ভাষা আন্দোলন আমাদের স্বাধিকার আন্দোলনের আলোকবর্তিকা। এই বইয়ের একটি ছড়ার ভাষায় যদি বলি “ভাষার লড়াই দিয়েই শুরু স্বাধিকারের সূচনা’……. ১৯৪৭ এর দেশভাগ এর পরপরই এই জনপদের মানুষ বুঝে যায় শুভঙ্করের ফাঁকিটা।তাইতো ১৯৪৮ এ রেসকোর্স মাঠে জিন্নাহ যখন বলে উঠেন” উর্দু, কেবল উর্দুইই হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা “। সাথে সাথে “না” “না” বলে প্রতিবাদে ফুঁসে উঠে এই দেশের জনতা।এই বইয়ের শুরুর দিকে একটি ছড়ায় লিখেছি
“মার্চের সেদিন একুশ তারিখ
বলে দিলেন জিন্নাহ
উর্দু হবে রাষ্ট্রভাষা
বাংলার এখন দিন না।
রেসকোর্সের মাঠে মানুষ
” না” ” না” বলে চিৎকারে
উর্দু নয় রাষ্ট্রভাষা
জনগণে ধিক্কারে।”
ঠিক এইভাবেই কিভাবে ধর্ম নিয়ে দেশভাগ হয়,নাজিমুদ্দিনের ঘোষণা, রাষ্ট্রভাষা কমিটি,দেশজুড়ে তার বিস্তার,প্রথম শহিদ,দশজন দশজন করে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করা,প্রথম শহিদ মিনার গড়া আবার তা পাকিস্তানি বাহিনীর গুড়িয়ে দেয়া, একুশের প্রথম কবিতা,শহিদ মিনার গড়ার শিল্পী হামিদুর রহমান,জেলখানায় বঙ্গবন্ধুর আমরণ অনশনের ডাক, রাস্ট্রিয়ভাবে একুশে ফেব্রুয়ারি স্বীকৃতি পাওয়া,একুশের গান,সাহিত্য,জাতিসংঘে বাংলায় প্রথম বঙ্গবন্ধুর ভাষণ, একুশে ফেব্রুয়ারি ১৯৯৯ সালে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া সবই ইতিহাসের ধারাবাহিকতায় এই বইটিতে ছড়ায় ছড়ায় তুলে ধরেছি।বইটি পড়ে ছন্দের মাধ্যমে শিশু কিশোররা বাংলাদেশের মাতৃভাষার লড়াইয়ের ইতিহাস জানতে পারবে বলে আমার বিশ্বাস।বইটি পাওয়া যাবে মহান একুশের বাংলা একাডেমির বইমেলায় “আদিগন্ত” প্রকাশন এর স্টলে। স্টল নাম্বার – ৫৪১।পরে চট্টগ্রাম এর বাতিঘর এ ও পাওয়া যাবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.