নতুন কক্ষপথে ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা

অনেক চমকপ্রদ ঘটনার নায়ক বিএনপি সরকারের সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা অবশেষে রাজনীতির নতুন কক্ষপথে নিজেকে ঠাঁই করে নিয়েছেন। সবশেষে তিনি আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটকে সমর্থন জানিয়েছে। এখন থেকে তার ৩১ দলীয় বাংলাদেশ জাতীয় জোট (বিএনএ) ১৪ দলের সামনের কর্মসূচিগুলোতে যৌথভাবে সংহতি প্রকাশ করে অংশগ্রহণ করবে বলে জানান তিনি। তবে তিনি এই নতুন কক্ষপথে কতদিন ঘুরতে পারবেন সেটাও এখন দেখার বিষয়।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়ে সোমবার বিকেলে ১৪ দলের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে এক সংবাদ সম্মলনে তিনি সাংবাদিকদের তার এ সমর্থনের কথা জানান।
দেশে চলমান গুপ্তহত্যাসহ বিভিন্ন সন্ত্রসী কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে দেশব্যাপী আগামী ১৯ জুন ১৪ দলীয় জোটের মানববন্ধন কর্মসূচিতে নাজমুল হুদার নেতৃত্বাধীন জোট অংশ নেবে বলে জানান ১৪ দলে মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।
সংবাদ সম্মেলনে নাজমুল হুদা বলেন, ‘সন্ত্রাস দমনে রাজনীতির কোনো সুযোগ নেই। এজন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে পদক্ষেপ নিচ্ছেন তাকে আমরা পূর্ণ সমর্থন করি। রাস্তার রাজনীতি শেষ। এখন আর রাজপথে মারামারি, হানাহানি, সন্ত্রাস, অহেতুক ধর্মঘট নেই। একটা শান্তিময় পরিবেশ বিরাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী এসব সন্ত্রাস বন্ধ করতে পেরেছেন এ জন্য তাকে ধন্যবাদ।’
তিনি বলেন, ‘আজকে তারা বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়। ইসরায়েল ও মোসাদের সঙ্গে বৈঠক করে সরকার পতনের চক্রান্ত করছে। এ জন্য যদি আমরা ১৪ দলীয় জোটকে শক্তিশালী করি, তবে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করা হবে।’
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘১৪ দলের লক্ষ্য শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়া। এ জন্য আমরা ধারাবাহিক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছি। দেশে সাম্প্রতিক গুপ্তহত্যার প্রতিবাদে জাতীয় জোটের নেতৃবৃন্দ এসেছেন, এ জন্য নাজমুল হুদাকে ধন্যবাদ। তাদের সঙ্গে আজ যে মতবিনিময় শুরু হলো এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি অন্যান্য অসাম্প্রদায়িক দলগুলোর সঙ্গেও পর্যায়ক্রমে মতবিনিময় করবে ১৪ দল।’
তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের টার্গেট কিলিংয়ের শিকার হচ্ছেন দেশের সাধারণ মানুষ। তারা উস্কানী দিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত করছে দল দুটির নেতারা। প্রধানমন্ত্রীর দেশের সকল গণতান্ত্রিক ও অসম্প্রদায়িক মানুষকে এসব সন্ত্রাস ও ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আশা করি জনগণ আমাদের সঙ্গে আছেন এবং থাকবেন।’
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, ডা. দীপু মণি, জাসদ (একাংশ) সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, জাসদ (একাংশ) সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশাসহ উভয় জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.