পাকিস্তানী কূটনীতিককে ঢাকা হাইকমিশন থেকে প্রত্যাহার

ঢাকার হাইকমিশন থেকে পাকিস্তানী নারী কূটনীতিক ফারিনা আরশাদকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। আজ বুধবার দুপুর দেড়টায় পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে তিনি ঢাকা ছাড়েন। ফারিনা আরশাদ ঢাকায় পাকিস্তান হাইকমিশনের সেকেন্ড সেক্রেটারি (রাজনৈতিক) পদে কর্মরত ছিলেন।

নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জেএমবির জঙ্গি সন্দেহে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে আটক এক ব্যক্তি পাকিস্তান হাইকমিশনের একজন নারী কূটনীতিকের সাথে যোগাযোগের কথা জানিয়েছে বলে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছিল। এরপর সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী, বিশেষ করে নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান জঙ্গি মদদের জন্য ফারিনা আরশাদকে সরাসরি দায়ি করে পাকিস্তান হাইকমিশনকে ষড়যন্ত্রের আখড়া হিসাবে আখ্যায়িত করেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ওই কূটনীতিককে সরিয়ে নিতে অনানুষ্ঠানিকভাবে চাপ দেয়ার পরই পাকিস্তান তাকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে।

পাকিস্তান হাইকমিশন অবশ্য ফারিনা আরশাদকে নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন হিসাবে অভিহিত করে তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। তাদের অভিযোগ, কাহিনীটি গোয়েন্দা বিভাগের মাধ্যমে গণমাধ্যমে এসেছে। গণমাধ্যমের একটি অংশ ঘটনার সত্যতা যাচাই না করে তা হুবহু প্রকাশ করেছে। এটি শুধু একজন নারী কূটনীতিকের চরিত্র হননের ঘৃণ্য চেষ্টাই নয়, এতে তার নিরাপত্তাকেও বিপদাপন্ন করতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.