পুত্রের স্মৃতিতে রবীন্দ্রনাথ

হুমায়ুন সাদেক চৌধুরী ।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে আমরা কত রূপেই না চিনি! কিন্তু কবি’র আত্মজ রথীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর পিতৃদেবকে কিভাবে দেখেছেন ও জেনেছেন, তা আমরা খুব কমই জানি। কারণ, কবিপুত্র আপন জীবনের শেষভাগে এসে ‘’অন দ্য এজেস অব টাইম’’ নামে যে স্মৃতিকথাটি রচনা করেছিলেন, সেটি আমাদের প্রায়-সবার একরকমই অজানাই।

যারা কেবল ইংরেজি বই পড়ে পরম তৃপ্তিতে ঠোঁট চাটেন, তারা হতাশ হলেও বলি, ইংরেজিতে রথীন্দ্রনাথ-রচিত মূল বইটার হদিস আমার জানা নেই। তবে বাংলা বই পড়েও যারা তৃপ্তি পান তাঁরা জেনে খুশি হবেন যে, রথীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বইটির একটি বাংলা অনুবাদ এখন বাজারে এসেছে। ‘’আমার বাবা রবীন্দ্রনাথ’’ নামে অনুবাদটি করেছেন কবির চান্দ।

বইটি নিয়ে অযথা বাগবিস্তারের প্রয়োজন নেই, নামেই এর পরিচয়। কবি রবীন্দ্রনাথ, ব্যক্তি রবীন্দ্রনাথ, ধ্যানী রবীন্দ্রনাথ, কর্মী রবীন্দ্রনাথ – কতো রূপেই না তাঁকে আমরা পাই এ বইয়ে!

একজন সত্যিকার সুশিক্ষিত মানুষ কতোটা সংযমী হতে পারেন, রথীন্দ্রনাথ এ বইয়ে তারও জ্ব লন্ত দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন। বইতে স্বাভাবিকভাবে লেখকের নিজের প্রসঙ্গ বার-বার এসেছে। কিন্তু একবারের জন্যও তিনি উচ্চারণ করেননি পিতার প্রতিষ্ঠিত বিশ্বভারতীতে তাঁর বিরুদ্ধবাদীদের নাম ও তৎপরতার কথা। এমনকি শেষজীবনে তাঁকে সেখান থেকে একরকম বিতাড়িতই হতে হয়। এসবের সবিস্তার বর্ণনা দিয়ে বিরুদ্ধবাদীদের তুলাধুনা করতে পারতেন রথীন্দ্রনাথ। কিন্তু না, ও পথের ছায়াও মাড়াননি তিনি। শিক্ষিত, সভ্য মানুষ একেই বলে। এই শিক্ষা ও সংযমের পরিচয় পাওয়ার জন্য হলেও রবীন্দ্রপ্রেমীমাত্রেরই এ বই সংগ্রহ ও পাঠ অবশ্যকর্তব্য বলে আমি মনে করি।

এবার আসি অনুবাদ প্রসঙ্গে। বইটির অনুবাদক কবির চান্দ-এর নাম এর আগে শুনেছি বলে মনে পড়ে না (হায়, জগতের কত কিছুই তো আমার অশ্রুত, অজানা!), কিন্তু তাঁর অনুদিত বইটি পড়ে আমি স্তম্ভিত। মনে হলো, কেউ অনুবাদ করেননি, স্বয়ং লেখকই বাংলায় বইটি লিখেছেন। অনুবাদ কতোটা প্রাণবন্ত হলে পাঠকের মনে এমন অনুভূতি তৈরি হয় হয়, ভাবা যায়! পড়তে-পড়তে মনে পড়লো ছোটবেলায় ম্যাক্সিম গোর্কির আত্মজীবনী সিরিজের কথা। ওগুলো পড়েও মনে হয়েছিল, এ বই গোর্কি নিজেই বাংলায় লিখেননি তো!

অসাধারণ অনুবাদের (পড়ুন, অনুসৃষ্টি) জন্য কবির চান্দকে অভিবাদন। অভিবাদন ‘’অনুবাদের পরিপ্রেক্ষিত : ফিরে দেখা রথীন্দ্রনাথ’’ শীর্ষক ভূমিকাটির জন্যও। এটি লেখা না-হলে বইটি ‘’অসম্পূর্ণ’’ থাকতো বলেই মনে করি।

বইটি প্রকাশ করেছে অ্যাডর্ণ পাবলিকেশন। দাম ৪০০ টাকা। কিনতে চাইলে রকমারিডটকমকে ফোন করতে হবে ০১৫ ১৯৫২ ১৯৭১ এ নাম্বারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.