প্রধানমন্ত্রীর কাছেই সহায়তা চান লাকী আখান্দ

অভি মঈনুদ্দীন

গুরুতর অসুস্থাবস্থায় সুরস্রষ্টা লাকী আখান্দ ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।তবে হাসপাতালের আইসিইউতে আছেন তিনি এই তথ্যটি ভুল। বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ পরিবেশন থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন আখান্দ নিজেই। কারণ বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ পরিবেশনের কারণে তার পরিবার ব্রিবতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছেন।

গত ১৯ জুলাই বিকেলে ইউনাইটেড হাসপাতালের সাত তলার একটি কেবিনে চিকিৎসাধীন লাকী আখান্দের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তিনি নিজেই অনুরোধ করেন সঠিক খবর প্রকাশের জন্য। নিজের উন্নত চিকিৎসা এবং চিকিৎসার খরচ ধারাবাহিকভাবে চালিয়ে নেয়ার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার একান্ত ভক্তদের কাছে আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে লাকী আখান্দ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমি ব্যক্তিগতভাবে খুব পছন্দ করি এবং সম্মানও করি। এর আগে আমার ক্যান্সার চিকিৎসায় ব্যাংককে থাকাকালে তিনি আমাকে পাঁচ লাখ টাকা সহযোগিতা করেছিলেন।

প্রসঙ্গটি টাকার নয়, প্রসঙ্গটি ভালোলাগার। তিনি আমাকে মনে রেখে সহযোগিতা করেছেন, এটাই ভালো লাগার। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছেই আমার চিকিৎসার জন্য আবারো সহযোগিতা চাইছি। পাশাপাশি আমার মনেপ্রাণে ভক্তরা যদি আমাকে সহযোগিতা করেন তবে সেটা আমার খারাপ লাগবে না। বরং মনে করবো তারা আমার বিপদে পাশে দাঁড়িয়েছেন।

এদিকে দু’একদিনের মধ্যেই লাকী আখান্দকে হাসপাতালেই ফুসফুসে ক্যান্সারের জন্য কেমোথেরাপি দেয়া হবে। এটা যথেষ্ট ব্যয়সাপেক্ষ। পাশাপাশি বেক পেইনতো আছেই। তবে আগের চেয়ে লাকী আখান্দের শারীরিক অবস্থা ভালো। তিনি ইউনাইটেড হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা, নার্সিং এবং ডাক্তারদের দক্ষতায় ভীষণ খুশি।

এদিকে ক্যান্সার চিকিৎসাধীন সময়ে লাকীকে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছেন আসিফ ইকবাল। অথচ ‘তারা ভরা রাতে’ গানটির সময় মাত্র একবারই দেখা হয়েছিল তারসঙ্গে। পাশাপাশি তার পাশে যারা সবসময় ছিলেন তাদের নাম বলতে গিয়ে লাকী আখান্দ বলেন, ফরিদ আহমেদ, লাবু রহমান, কুমার বিশ্বজিৎ, আইয়ূব বাচ্চু, সামিনা চৌধুরী, ফাহমিদা নবী, ফোয়াদ নাসের বাবুসহ আরো অনেকের সঙ্গে রাঙামাটির মানুষেরা।

লাকী আখান্দ আশা করেন তিনি আবারো গানের ভূবনে ফিরে আসতে পারবেন।

এদিকে বাবার পাশে সার্বক্ষণিকভাবে আছেন মেয়ে মাম-মিন্তি আখান্দ। তিনি জানান, তার বাবাকে সহযোগিতা পাঠানো যাবে- Lucky Aakhand, Account Number 162.101.137369 Dutch Bangla Bank এই অ্যাকাউন্ট নম্বরে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.