ফিরছেন সানিয়া মির্জা

লম্বা বিরতির পর টেনিস কোর্টে ফিরছেন সানিয়া মির্জা। আগামী বছর জানুয়ারিতে ফের র‌্যাকেট হাতে কোর্টে দেখা যাবে এ ভারতীয় তারকাকে। ২০১৭ সাল থেকে টেনিস থেকে দূরে আছেন সানিয়া মির্জা। এর মধ্যে পেয়েছেন মাতৃত্বের স্বাদ। মা হয়েছেন গত বছরের অক্টোবরে। ঘর আলো করে এসেছে ফুটফুটে পুত্রসন্তান ইজহান। ২০১৭ সালের অক্টোবরে চীন ওপেনে সর্বশেষ টেনিস কোর্টে দেখা গিয়েছিল সানিয়াকে। আগামী বছর জানুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় হোবার্ট ইন্টারন্যাশনাল টুর্নামেন্ট দিয়ে টেনিসে ফেরার ঘোষণা দিয়েছেন সানিয়া মির্জা।

নারী দ্বৈত টেনিসে তিনি জুটি বাঁধবেন র‌্যাঙ্কিংয়ের ৩৮ নম্বরে থাকা ইউক্রেনের নাদিয়া কিচোনেকের সঙ্গে। আর মিশ্র দ্বৈতে সানিয়ার সঙ্গী হতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাজীব রাম। হোবার্ট ইন্টারন্যাশনালে খেলার পর বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম অস্ট্রেলিয়ান ওপেনেও খেলার ইচ্ছা আছে দ্বৈত ও মিশ্র দ্বৈত মিলিয়ে ছয় বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জয়ী সানিয়ার। সানিয়া মির্জা বলেন, ‘হোবার্টে আমি খেলবো, এরপর লক্ষ্য অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। মুম্বাইতেও একটি টুর্নামেন্টে খেলার ইচ্ছা আছে, তবে সেটার ব্যাপারে এখনো পুরোপুরি নিশ্চিত নই। আমার কব্জির ওপর নির্ভর করছে সেটা। তবে হোবার্ট ও অস্ট্রেলিয়া নিশ্চিত।’

পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের স্ত্রী সানিয়া মির্জা বলেন, ‘সন্তান জন্ম দেয়ার পর অনেক কিছুই বদলে যায়। জীবনের নিয়মকানুন ও ঘুমের সময়ের পরিবর্তন আসে। তবে এখন আমি ফিট। সন্তান হওয়ার আগে যেমন ছিলাম, এখন নিজেকে ঠিক তেমনই ঝরঝরে মনে হচ্ছে। কয়েক মাস আগে চিকুনগুনিয়া ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলাম। হুট করে কবজিতে ব্যথা ছিল কিছুদিন সে জন্য। দুই সপ্তাহের মতো অসুস্থ ছিলাম।’ সানিয়ার চোখ মূলত আসন্ন অলিম্পিক গেমসের দিকে। তিনি বলেন, ‘অলিম্পিকে তিনবার অংশ নিয়েছি আমি। শেষ বার দুর্ভাগ্যবশত আমরা পদক জিততে পারিনি। যদি আমি আবারও নিজেকে ফিট রেখে চতুর্থবারের মতো অলিম্পিকে যেতে পারি, তাহলে সেটা হবে আমার জন্য গর্বের বিষয়। অলিম্পিকের আগে তিনটি গ্র্যান্ড স্লাম পাচ্ছি, আমি সপ্তাহ ও দিন ধরে ধরে এগোতে চাই।’