ব্রিটেনের ঐতিহাসিক গণভোটে এগিয়ে ‘লিভ’

লন্ডন: ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা না থাকা নিয়ে ব্রিটেনের ঐতিহাসিক গণভোটে ইইউ ত্যাগের পক্ষেই বেশি ভোট পড়েছে। ফলাফলের প্রবণতা বিশ্লেষণ করে বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাজ্য খুব সম্ভবত ২৮দেশের জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষেই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে।

ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান ও ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে দেখা যায়, এখন পর্যন্ত প্রায় ১৬ লাখ ভোট গণনা করা হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে ইইউ ত্যাগের পক্ষে, যা লিভ নামে পরিচিত, ৫১ শতাংশ ভোট পড়েছে। অন্যদিকে ইইউতে থাকার পক্ষে, যা রিমেইন নামে খ্যাত, ভোট পড়েছে ৪৯ শতাংশ।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ৩৮২টি নির্বাচনী জেলার মধ্যে ২০৬টির ফলাফল পাওয়া গেছে। এতে লিভ ৫১.৩ শতাংশ ভোট পেয়ে এগিয়ে রয়েছে। রিমেইন পেয়েছে ৪৮.৭ শতাংশ ভোট।

প্রাথমিক ফলাফলে মনে হচ্ছে, লিভ ক্যাম্প জনমত জরিপের পূর্বাভাসকে ছাড়িয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় (বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা) গণভোট শুরু হয়ে শেষ হয় রাত ১০টায়। এটি যুক্তরাজ্যের ইতিহাসে তৃতীয় গণভোট। এই গণভোটটিকে ব্রিটেনের রাজনৈতিক ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও জটিল এক সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে।

রেকর্ডসংখ্যক ৪ কোটি ৬৫ লাখ ভোটার এই গণভোটে অংশ নেন।

এই গণভোটে ইতিমধ্যে গোটা যুক্তরাজ্যকে দুই ভাগে ভাগ করে দিয়েছে।

ইইউতে থাকার পক্ষে ভোট দিতে প্রচারণায় নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুন ও লেবার পার্টির নেতা জেরেমি কার্বন। তাদের যুক্তি, এতে করে দেশটি হবে আরো সমৃদ্ধ এবং থাকবে আরো নিরাপদ।

অন্যদিকে, ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে ভোট দিতে প্রচারণায় নেতৃত্ব দেন সাবেক লন্ডন মেয়র ও বর্তমান সাংসদ বরিস জনসন।

ইইউ-বিরোধীদের মত, দেশের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে ফিরিয়ে আনার এটাই মোক্ষম সময়।

শুধু ব্রিটেন নয়, এই গণভোট ঘিরে স্নায়ু টানটান গোটা বিশ্বের। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেন বেরিয়ে এলে ইউরোর দাম অনেকটাই পড়বে। বাড়বে ডলারের দাম। ব্রিটেনের নিজস্ব মুদ্রা পাউন্ডের উপরেও এর প্রভাব পড়বে। ফলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের হিসাব-নিকাশ অনেকটাই বদলে যাবে। ব্রিটেনের স্টক মার্কেট সকাল থেকেই টালমাটাল হয়ে রয়েছে। প্রভাব পড়েছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের স্টক মার্কেট-সহ বিশ্ব বাজারেও।

গণভোটের ফল যদি ব্রিটেনের বহির্গমনের পক্ষে হয়, তাহলে বিশ্ব বাজার টালমাটাল হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে অর্থনীতিবিদরা মনে করছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.