ভূমিকম্প : সতর্ক হচ্ছেন তো ?

একবার  ভূমিকম্প হলেই আমরা সচেতন হয়ে উঠি তবে কিছুদিন পর আমরা আবার তা ভুলে যাই, তাই এ ব্যাপারে আমাদের সবসময় সচেতন থাকতে হবে এবং বিশেষ করে ছোটদের বা কিশোর কিশোরীদের এ ব্যাপারে সচেতন করে তুলতে হবে।    ভূমিকম্প হলে আতঙ্কের কারণে মাথা ততটা কাজ করে না। তখন বিপদ আরো বাড়ে। ভূমিকম্প টের পেলেই মানুষ দৌঁড়ে বাইরে চলে যায়। সবাই একসাথে বের হতে গিয়ে হুড়াহুড়িতে ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হয়। তাই এই সব পরিস্থিতিতে ঘাবড়ে না গিয়ে মাথা ঠাণ্ডা রেখে কাজ করা উচিত।

ন্যাশনাল ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথোরিটির (এনডিএমএ) পরামর্শ-

১) ভূমিকম্প টের পেলে সবার আগে আপনার গায়ে বিশেষ করে ঘাড় ও মাথায় যাতে কিছু এসে না পড়ে, সে ব্যাপারে খেয়াল রাখতে হবে। কারণ ঘরের ফ্লোরে রাখা ভারী জিনিসগুলো এই যেমন শোকেস, টিভি ভেঙে পড়বে। তাই প্রথমে এই সবের হাত থেকে বাঁচতে পরিবারের সবাইকে নিয়ে ডাইনিং টেবিল, উঁচু খাট বা এ জাতীয় কোনো আসবাবের নিচে ঢুকে পড়ুন।

২) যতক্ষণ পর্যন্ত ভূ-কম্পন শেষ না হয় যে আসবাবের নিচে আছেন, তা শক্ত করে ধরে রাখুন।

৩) যদি আশপাশে মাথা গোজার মতো কিছু না থাকে অথবা কোনো হলরুমে থাকেন তবে, মাথায় হাত রেখে দেয়াল ঘেষে দাড়িয়ে থাকবেন।

৪) ভূমিকম্পের সময় গাড়িতে থাকলে যথাসম্ভব নিরাপদ স্থানে থাকুন। খোলা কোনো জায়গায় যান।

৫) ভূমিকম্পের সময় শপিংমলে থাকলে পাশের কোনো দোকানে ঢুকে পড়েন। তবে দোকানের জানালা ও ভারী আসবাব থেকে দূরে থাকুন।

৬) এ সময় স্কুলে থাকলে ডেস্ক ও টেবিলের নিচে ঢুকে পড়ুন এবং তা শক্ত করে ধরে রাখুন।

৭) যদি হুইলচেয়ারে বসা থাকেন তাহলে চেয়ারটি লক করুন। এবং ঘাড় ও মাথায় যেন কোনো ভারী জিনিস না পড়ে সেদিকে সাবধান থাকুন।
এছাড়া-

১) যদি বহুতল বাড়ির ওপরের দিকে কোনো তলায় আটকা পড়েন, বেরিয়ে আসার কোনো পথই না থাকে, তবে সাহস হারাবেন না। ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করুন। ভেবে দেখুন, উদ্ধারকারী পর্যন্ত আপনার চিৎকার পৌঁছাবে কি না।

২) ঘর থেকে বের হওয়ার অবস্থা থাকলে আশপাশের সবাইকে বের হয়ে যেতে বলুন।

৩) দ্রুত বৈদ্যুতিক ও গ্যাসের সুইচ বন্ধ করে দিন।

৪) এ সময় লিফট ব্যবহার করবেন না।

৫) কোনো কিছু সাথে নেয়ার জন্য অযথা সময় নষ্ট করবেন না।

৬) বিম, দেয়াল, কংক্রিটের ছাদ ইত্যাদির মধ্যে আপনার শরীরের কোনো অংশ চাপা পড়লে, বের হওয়ার সুযোগ যদি না-ই থাকে, তবে বেশি নড়াচড়া করবেন না। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হতে পারে।

৭) ধ্বংসস্তূপে আটকে গেলে সাহস হারাবেন না। যেকোনো উত্তেজনা ও ভয় আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

৮) বড় ভূমিকম্পের পরপরই আরেকটা ছোট ভূমিকম্প হয় যেটাকে ‘আফটার শক’ বলে। এটার জন্যও সতর্ক থাকুন। একবার বড় ভূমিকম্প হলে পরের কয়েক রাতে ঘুমানোর সময় মাথার কাছে একটা কাঁথা রাখুন, সময়মতো সবচেয়ে জরুরি মাথাটাকে ঢেকে রাখুন।

৯) ভূমিকম্পে আগুন ছড়ায়। ঘিঞ্জি ইলেকট্রিক আর গ্যাসের লাইন, এক জায়গায় আগুন লাগলে দাবানল হয়ে যাবে। সবচেয়ে মারাত্নক হলো গ্যাস, এক বাসায় আগুল লাগলে, মুহুর্তে আশপাশের বাসায় গ্যাসের লাইনের মাধ্যমে সেটা ছড়িয়ে পড়বে। কাজেই প্রয়োজনের সময়টুকু ছাড়া, বাকী সময় গ্যাসের মেইন সুইচ অবশ্যই বন্ধ রাখবেন।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.