মর্মান্তিক ঘটনার দ্বীপ

ক্লিপারটন আইল্যান্ড একটি কোরাল দ্বীপ। এর অবস্থান প্রশান্ত মহাসাগরে। পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট কোরাল দ্বীপ হিসেবেও এটি পরিচিত।

আয়তনে এটি মাত্র ৬ বর্গ কিলোমিটার। তবে এই দ্বীপটি বিখ্যাত হয়েছে মর্মান্তিক এক ঘটনার জের ধরে।

১৯০০ সালের শুরুর দিকে দ্বীপটিতে খনি থেকে গুয়ানো উত্তোলন করা হতো।

১৯১০ সালে এই ছোট দ্বীপে বাতিঘর বানানো হয়। তখন সেখানে প্রায় ১০০ মানুষ বসবাস করত। তাদের মধ্যে পরিবার এবং ছোট ছেলেমেয়েরাও ছিল। প্রতি দুই মাস পর পর জাহাজে এসে খাবার দিয়ে যেত এলাকার লোকজনদের।

কিন্তু ১৯১৪ সালে হঠাৎ মেক্সিকান যুদ্ধ শুরু হয়ে যাওয়াতে জাহাজ আসা বন্ধ হয়ে যায়। দ্বীপটির মানুষজনের কথাও ভুলে যায় সবাই।

ছোট একটি শস্যবিহীন দ্বীপে কোনো খাবার ছাড়া মানুষগুলোও টিকে থাকতে পারেনি। ১৯১৭ সালে আমেরিকান একটি জাহাজ সেই দ্বীপ থেকে সর্বশেষ ৩ নারী ও ৮ শিশু উদ্ধার করে। তারাই ছিল দ্বীপের অবশিষ্ট বাসিন্দা। যুগান্তর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.