শীত এলো, এলো শীত

শীত জেঁকে বসেছে বাংলাদেশে৷ এ মাসে শৈত্য প্রবাহের আগাম বার্তা দেয়া হয়েছিল আগেই ৷ বিজ্ঞানীরা বলছেন, সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশের তাপমাত্রাও বাড়ছে৷ সেকারণে শীত দেরিতে এলেও বেশি শীত পড়তে পারে বাংলাদেশে৷ হিমেল হাওয়া ও ঘনকুয়াশায় দেশের বিভিন্ন স্থানে জেঁকে বসেছে শীত। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। আগামী ৭২ ঘণ্টায় ঢাকার তাপমাত্রা আরো ১ থেকে ২ ডিগ্রি কমবে। আর ঘন কুয়াশায় ঢেকে যাবে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পৌষ, মাঘ এই দুই মাস বাংলাদেশে মূলত শীত কাল৷ এখন চলছে পৌষ ৷ আর কথায় আছে, মাঘের শীতে বাঘ পালায়৷ কিন্তু এবার যা অবস্থা তাতে বাঘ কেন উল্টো শীতের পোশাকের যেন পলায়নপর অবস্থা৷

গত নভেম্বরেও ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরগুলোতে দিন ও রাতের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি ছিল৷ আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ৭ নভেম্বর ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ গত ২৫ বছরের রেকর্ড হলো, ৭ নভেম্বর এবং আশপাশের তারিখে ঢাকার দিনের তাপমাত্রা ছিল ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে যায়নি৷

অতি বর্ষণ হচ্ছে৷ শীতের সময় শীত নেই৷ অথবা শীত আসছে দেরি করে, চলেও যাচ্ছে আগে৷ ২০১৫ সালের প্যারিস অ্যাগ্রিমেন্টে ১৯৫টি দেশ তাই এই শতাব্দিতে তাপমাত্রা ২ ডিগ্রির নিচে রাখার কথা বলেছে৷ আর এটা সম্ভব শিল্পায়নের মাধ্যমে যে কার্বন নিঃস্বরণ হচ্ছে, তা কমিয়ে৷”

রাজধানীসহ সারাদেশে শীত পড়তে শুরু করেছে। সাথে সাথে কমছে তাপমাত্রাও। এ তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে আসবে। ১৮ ডিসেম্বর, বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় ১০ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এছাড়া ২০, ২১ ও ২২ ডিসেম্বর দেশের কিছু কিছু জায়গায় প্রথম মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, আজ ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চট্টগ্রামে তাপমাত্রা ১৬ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সিলেটে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। ময়মনসিংহে ১৩ ডিগ্রি, রাজশাহীতে ১১ দশমিক ৪, খুলনায় ১৫, বরিশালে ১৪ দশমিক ৫, রংপুরে ১৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, ‘দেশের বেশির ভাগ অঞ্চলের তাপমাত্রা কমে শীত অনুভূত হচ্ছে। আরও দু-তিন দিন তাপমাত্রা কমা অব্যাহত থাকবে। এ সময়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে আসতে পারে। তবে ঢাকায় তাপমাত্রা এই পরিমাণ কমার কোনো সম্ভাবনা নেই। মূলত দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল, যশোর, চুয়াডাঙ্গায় তাপমাত্রা কমতে থাকবে।’

আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান বলেন, ‘এখন শীতের ঠান্ডা, কুয়াশা পড়ছে। শৈত্যপ্রবাহ এখনও শুরু হয়নি, তবে সামনে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। আজ-কাল আরো তাপমাত্রা কমে যাবে। তখন কিছু কিছু জায়গায় শৈত্যপ্রবাহ হয়তো পড়তে পারে।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.