সচিনের দশ নম্বর জার্সিকে ‘অবসরে’ পাঠানোর সিদ্ধান্ত

দশ নম্বর জার্সি পরে ভারতের কোনো ক্রিকেটারই আর কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচে নামবেন না। সচিন তেন্ডুলকরের সঙ্গে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে থাকা এই নম্বরের জার্সিটি চিরতরে তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিল বিসিসিআই।

নিজের জীবনের সবক’টি একদিনের ম্যাচ, একমাত্র আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচে এই দশ নম্বর জার্সি পরেই খেলেছিলেন সচিন। আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ানসেও এই নম্বরের জার্সিই পরতেন তিনি। ২০১৩ সালের নভেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও, তার দেড় বছর আগে, অর্থাৎ ২০১২-এর মার্চে শেষ একদিনের ম্যাচটি খেলেছিলেন তিনি।

তার পর থেকে প্রায় পাঁচ বছর ভারতের হয়ে কেউ দশ নম্বর জার্সি পরেননি। কিন্তু গত আগস্টে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একটি একদিনের ম্যাচে এই দশ নম্বর জার্সি পরেই খেলতে নামেন মুম্বইয়ের পেসার শার্দুল ঠাকুর। সঙ্গে সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হওয়ার বস্তু হয়ে যান শার্দুল।

‘তুমি কি নিজেকে সচিন মনে কর?’, ‘সচিনের মতো হতে চাইছ কেন’, এরকম ব্যাঙ্গাত্মক মন্তব্যে বিদ্ধ হন শার্দুল। শুধুমাত্র সংখ্যাতত্ত্বের জন্যই তিনি এই নম্বরের জার্সি পরেছেন, এমন সাফাইও দিতে হয় শার্দুলকে। এরকম বিদ্রুপের শিকার জাতে ভবিষ্যতে কোনো ক্রিকেটারকে না হতে হয়, এই জন্যই জার্সিকে তুলে রাখার সিদ্ধান্ত।

বিসিসিআইয়ের এক আধিকারিক বলেন, “এর ফলে অহেতুক বিতর্ক হয়, খেলোয়াড়কে বিদ্রুপের শিকার হতে হয়। তাই এই নম্বরকে তুলে রাখাই ভালো।” তবে ঘরোয়া ম্যাচ, প্রথম শ্রেণি বা ‘ভারত এ’ দলের হয়ে খেলতে নামলে কেউ দশ নম্বর জার্সি পরতে পারেন বলে জানিয়েছেন ওই আধিকারিক। সূত্র: খবর অনলাইন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.